বুধবার,২১ অক্টোবর, ২০২০ অপরাহ্ন

কালীগঞ্জে বাল্যবিয়ের পরে সাবেক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অবস্থান!

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বার, ২০২০ ১৫ ৫২

হাসানুজ্জামান হাসান-

আমাদের সমাজে অভিভাবকদের কারনে প্রতিনিয়ত বাল্যবিবাহ হচ্ছে। আর এ বাল্যবিবাহের কারনে আমাদের সমাজে ফুলের ( ছদ্মনাম)  মত কতই না জীবন নিয়ে খেলা হচ্ছে কেউ তার হিসাব রাখে না। আর এসব বাল্যবিবাহকে পুঁজি করে ফুলের মত মেয়েদের আবেগকে কাজে লাগিয়ে সমাজের একশ্রেণীর মানুষ ফায়দা লুফে নিচ্ছে। এসবের দায় কার? ফুলদের নাকি এ সমাজের এ প্রশ্নের উত্তর নেই। 

২৪ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) রাতে এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার দলগ্রাম ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের বরন্তর গ্রামে। 

সরেজমিনে জানা যায়, ২ নং ওয়ার্ডের ফজলুল হকের মেয়ে ছদ্মনাম ফুল ৩নং   ওয়ার্ডের বরন্তর গ্রামের মনিরুল হকের ছেলে চাচা ফারুক(১৬) এর সহিত দুই বছর পুর্বে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানাজানি হলে ফুলের পরিবার ফুলকে অনত্র বিয়ে দেয়। ফুল তার স্বামীর সংসার করা অবস্থায় গতকাল হঠাৎ করে সাবেক প্রেমিক চাচা ফারুকের বাড়িতে চলে আসেন। এমন ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। উৎসুক জনতা ভির জমিয়েছে চাচা ফারুকের বাড়িতে। কিন্তুু চাচা ফারুক ৯ দিন পুর্বে কাজের উদ্দেশ্য কুমিল্লায় অবস্থান করছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। 

এ বিষয়ে ফুল জানান, আমি নিজে ফারুকের বাড়িতে এসেছি। আগের স্বামীকে তালাক দিয়েছে কিনা জানতে চাইলে ফুল কোন উত্তর দেয় নাই। ফারুকের সাথে ফুলের প্রেমের সম্পর্ক থাকার পর কেন অন্যত্র বিয়ে করলেন প্রশ্ন করতে ফুল জানান, সে সম্পর্কে আমার চাচা হয় তাই। এখন কেন এসেছেন জানতে চাইলে বলেন, আমাকে আসতে বলেছে। 

তবে  ফারুকের  একটি রবি নাম্বারে কল করে জানা গেছে সে এ বিষয়ে কিছু জানেন না। তিনি ফুলকে আসতে বলেননি। এমনকি একটি বিবাহিত মেয়ে যিনি এখনো তার স্বামীর সংসারে বর্তমান তাকে কেন বিয়ে করব বলে প্রশ্ন করেন সে। 

এ ঘটনায় এলাকার একটি কুচক্রী মহল ফুলের আবেগকে কাজে লাগিয়ে মোটা অংকের টাকা রফাদফা করার প্রচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। আর কত ফুলের জীবন এভাবে স্থানীয় টাউট পাটপারদের কবলে পড়ে নষ্ট হবে। এ হিসেব মিলানো বড়ই কঠিন।  

স্থানীয় লোকজনের দাবী- কারা এসব ফুলদের বাল্য বিয়ে দিতে প্রভাবিত করে। কারা হাজারও ফুলদের বাল্যবিবাহে সহযোগিতা করে জীবনকে হুমকীর মুখে ঠেলে দিচ্ছে। আগে এসব স্থানীয় টাউট পাটপারদের খুঁজে শাস্তি দেওয়া দরকার বলে মনে করেন সকলে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2018 Andolon71
Theme Developed BY Rokonuddin