বুধবার,৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ অপরাহ্ন

লোকসান পোষাতে আম বাগানে হলুদ চাষ

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ১৬ ৩৭

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি- 

আমের রাজধানী হিসেবেই খ্যাত চাঁপাইনবাবগঞ্জ। তবে আমচাষীরা চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলায় গত মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩৬ হাজার মে. টন আম কম উৎপাদন হয়েছে।

গত কয়েক বছর ধরে আমে লোকসান হওয়ায় এবার আমবাগানে সাথী ফসল হিসেবে ব্যপক হলুদের চাষ করেছে চাষীরা। এতে করে চাষীরা তাদের ক্ষতি অনেকটা পুষিয়ে নিতে পারবেন বলে মনে করেন। আর আমের দাম না থাকায়

বাগান পরিচর্যা থেকে চাষীরা মুখ ফিরিয়ে নেয়ায় গত বছর লক্ষ্যমাত্রা পূরন হয়নি। তাই আম বাগানে এখন সাথি ফসলই ভরসা কৃষকদের।

আম সংশ্লিষ্টরা জানান, আমের রাজধানীতে আমচাষীরা গত কয়েকবছর ধরে জেলার বাইরে অন্যন্য এলাকায় আমের ব্যপক চাষ,জলবায়ু জনিত কারন, ওজন নিয়ে জটিলতা ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারনে লোকসান গুনছেন।

বিশেষ করে বাগানে পরিচর্যা খরচ বৃদ্ধি ও বাগানগুলো একাধিক হাতবদলের কারনেই আমের উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু আমের দাম উল্টো কমে গেছে। এতে করে আমচাষে উৎসাহ হারাচ্ছে আমচাষী। 

গত বছর আম উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ছিল জেলায় ২ লাখ ৭৫ হাজার মে. টন। কিন্তু উৎপাদন হয়েছে মাত্র ২ লাখ ৩৯ হাজার মে. টন। 

জেলার সবচেয়ে বেশি আমবাগান শিবগঞ্জে হওয়ায় জেলার সবচেয়ে বেশি হলুদ চাষ হচ্ছে এ উপজেলাতেই। তবে হলুদের দাম বেশি হওয়ায় এবং এ ফসলটি বাগানের মধ্যে চাষের জন্য উপযোগী হওয়ায় কৃষি অফিসের পরামর্শে হলুদ চাষে ঝুঁকে পড়ছেন চাষীরা। এতে করে এবার লোকসান পুষিয়ে উঠতে পারবেন বলে মনে করেন তারা।

শিবগঞ্জের বিনোদপুর এলাকার হলুদ চাষি রবিউল ইসলাম জানান, হলুদচাষে বাগানের ক্ষতির আশংকায় অনেকে গত বছর উৎসাহ না দেখালেও এ বছর কৃষি বিভাগের প্রচেষ্টায় গত বছরের তুলনায় দ্বিগুন হলুদের চাষ হয়েছে। কম খরচে ও অল্প পরিচর্যায় বেশি লাভ হওয়ায় বোনাস ফসল হিসেবেই কৃষকরা মুলত হলুদ চাষ করছে। তাই দিন দিন বাড়ছে হলুদের আবাদ ।

শ্যামপুর গ্রামের হলুদ চাষি মিঠুন আলী বলেন, হলুদ চাষে অন্য ফসলের মতো শ্রম দিতে হয় না। অল্প খরচে বেশি আয় হওয়ায় এবার আড়াই বিঘা জমিতে হলুদ চাষ করেছি। হলুদ মাঠ থেকে ওঠার আগেই প্রাণসহ বিভিন্ন কোম্পানির প্রতিনিধিরা জমিতে এসেই কাঁচা ও শুকনা হলুদ সংগ্রহ করে থাকেন।

অন্যদিকে চককীর্ত্তি এলাকার চাষী জাহাঙ্গির বিশ্বাস বলেন, গত বছরে তিন বিঘা জমিতে হলুদ চাষ করেছিলাম। এতে মোট ৪৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। সেখানে বিঘা প্রতি প্রায় ৬৫-৭০ মন হলুদ উৎপাদন হয়। আম চাষে তার লোকসান অনেকটায় পুষিয়ে নিতে পারছেন।

শিবগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা মো: আমিনুজ্জামান রতন জানান, কম খরচে হলুদ চাষে ব্যপক লাভের পাশাপাশি দেশের মসলা ফসলের ঘাটতি অনেকাংশে পূরন হবে। তাছাড়া জেলার সবচেয়ে শিবগঞ্জে আমবাগান বেশি

হওয়ায় এবং আমের দাম নিয়ে কৃষকের হতাশা থাকায় সাথি ফসল চাষের আইডিয়া থেকেই কৃষকদের হলুদচাষে উদ্বুদ্ধ করায় বর্তমানে কৃষক

স্বর্তফুর্তভাবে হলুদ চাষ আরম্ভ করেছেন। এবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ৫ উপজেলায় ৬শ হেক্টর জমিতে হলুদের চাষ হয়েছে এর মধ্যে শিবগঞ্জে ৩শ৭০ হেক্টর জমিতে হয়েছে হলুদের চাষ।

আন্দোলন৭১/সিফাত/কাজী

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2018 Andolon71
Theme Developed BY Rokonuddin