বুধবার,২০ নভেম্বর, ২০১৯ অপরাহ্ন

বিড়ির সম্পূরক শুল্ক কমানোয় জনস্বাস্থ্য ক্ষতিগ্রস্থ হবে

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবার, ২০১৯ ২৩ ৩২
  • 96 বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি-

টেকসই উন্নয়নে তামাকের মতো স্বাস্থ্যহানী পণ্যের উপর কর বৃদ্ধি জরুরী। তামাকের ভয়াবহতা বিবেচনায় নিয়ে সারা বিশ্বে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় এখনো বাংলাদেশে কম দামে তামাক পাওয়া যায়। 

চলতি অর্থ বছরে জনস্বাস্থের কথা বিবেচনা করে বিড়ি-র উপর ৩৫ % শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছিল। যদিও বাজেটে প্রতিক্রিয়ায় জনস্বাস্থ্য রক্ষা ও রাজস্ব আয় বাড়াতে বিড়ির ওপর সম্পূরক শুল্ক আরও বাড়ানোর দাবি জানিয়েছিল তামাক নিয়ন্ত্রণ এর স্বপক্ষের আন্দোলনকারীরা। 

কিন্তু কর বৃদ্ধির বদলে  বিড়ির সম্পূরক কর ৫ শতাংশ কমিয়ে ৩০ শতাংশ করা হয়েছে। গত ১৩ অক্টোবর এ সংক্রান্ত  একটি প্রজ্ঞাপন জারী করে (জাতীয় রাজস্ব বোর্ড) এনবিআর। এ প্রজ্ঞাপন অনুসারে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত ২৫ শলাকার ১৪ টাকা মূল্যের প্যাকেটসহ সবধরনের বিড়ি এই সুবিধা পাবে। 

সম্প্রতি অর্থমন্ত্রীর উপস্থিতিতে তামাকখাত থেকে গতবছরের তুলনায় প্রায় ৯শ কোটি টাকা কম আদায় হয়েছে বলে তথ্য দেয় এনবিআর। বিড়ির ওপর বর্ধিত ৫% এসডি প্রত্যাহার করায় রাজস্ব আয় আরও কমবে এটাই সত্য। এতে সরকারের রাজস্ব ঘাটতি বাড়বে বিপরীতে বিড়ি কোম্পানীর লাভ বাড়বে এবং জনস্বাস্থ্য মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। বিড়ির ভোক্তা গ্রামীণ দরিদ্র ও শ্রমজীবি মানুষ হওয়ায় দরিদ্র মানুষগুলোর স্বাস্থ্য আরও হুমকীর মুখে পড়বে।

উল্লেথ্য যে চলতি অর্থ বছরে সঠিক তামাক করনীতির অভাবে সিগারেট হতেও রাজস্ব আদায় কম হয়েছে বলে জানিয়েছে এনবিআর। এই পরিস্থিতিতে কোনো বিবেচনাতেই বিড়ির ওপর ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক প্রত্যাহার গ্রহণযোগ্য নয়। বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট এর পক্ষ থেকে অবিলম্বে বিড়ির ওপর কর কমানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি করছি। 

আগামী ২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে তামাকমুক্ত করতে সকল তামাকজাত দ্রব্যের উপর সুনির্দিষ্ট কর আরোপের পাশাপাশি জাতীয় তামাক করনীতি প্রণয়নের দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে বিড়ির উপর সম্পূরক শুল্ক হ্রাসের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের আহবান জানাচ্ছি।

আন্দোলন৭১/এএইচ


নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2018 Rokonuddin
Theme Developed BY Rokonuddin